২৫৬১ বুদ্ধাব্দ ৫ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইংরেজী

কামনাহীন জাতক

রবিবার, ০৮ মে ২০১৬ ১৯:২৩ প্রতীক

পুরাকালে যখন ব্রম্মদত্ত বারণসী রাজা ছিলেন তখন বোধিসত্ত্ব কাশীরাজ্যে এক ব্রাম্মণবংশে জন্মগ্রহন করেন। বয়ঃপ্রাপ্তির পর তিনি বিষয় কামনা ত্যাগ করে ঋষিপ্রবজ্যা গ্রহন করেন এবং হিমালয় প্রদেশে অবস্থান করতে থাকেন। কিছুকাল পর তিনি পরবত হতে নেমে এসে রক গ্রামের নিকট গঙ্গার রক বাঁকের মাথায় এক পর্ণশালা নির্মাণ করে বাস করতে লাগলেন। এইসময় এক পরিব্রাজক তাঁর সঙ্গে বিচার করতে সক্ষম এমন কোন লোক খুঁজে পাচ্ছিলেন না। একদিন সেয় পরিব্রাজক সেই গ্রামে এসে উপস্থিত হলেন। তিনি গ্রামবাসী থেকে জিজ্ঞেস করলেন, আমার সঙ্গে বিচার করতে পারে এমন লোক এখানে আছে কি? গ্রামবাসীরা বলল, আছে বৈকি। এই বলে তারা বোধিসত্ত্বের বিচার ক্ষমতা বর্ণনা করতে শুরু করল। তখন সেই পরিব্রাজক অনেক লোক জনের সাথে বোধিসত্ত্বের নিকট বনে গেলেন। তারপর তাঁকে সম্ভাষণ করে আসন গ্রহন করলেন। বোধিসত্ত্ব তার অভিপ্রায় বুজতে পেরে জিজ্ঞাসা করলেন। আপনি বনগন্ধজুক্ত জল পান করবেন কি?? পরিব্রাজক তাঁকে মায়াজালে আবদ্ধ করার জন্য বললেন, গঙ্গা জল কি? গঙ্গা কি বালুকা না জল? গঙ্গা বলতে এপার বুঝায় না ওপার বুঝায়? বোধিসত্ত্ব উত্তর করলেন, যদি আপনি বালুকা, জল, এপারওপার বাদ দেন, তাহলে গঙ্গা পাবেন কোথা? এই প্রশ্নে পরিব্রাজক নিরুত্তর হয়ে উঠলেন। তারপর সেখান থেকে উঠে পালিয়ে গেলেন। বোধিসত্ত্ব তখন উপস্থিত ব্যক্তিদের উপদেশ দেবার জন্য একটি গাথার মাদ্যমে বললেন, এরা যা দেখে টা পেতে ইচ্ছা করে না, যা দেখেনা তাই পেতে ইচ্ছা করে। ফলে এই সব মতিহীন লোকেরা তাদের ঈপ্সিত বস্তু কখনই লাভ করতে পারে না। এরা যা লাভ করে প্রার্থী হয়ে ঘুরে বেরায় চিরদিন। এদের ইচ্ছা কোনদিনই পূরণ হয় না। তাই বীতরাগ বা কামনাহীন্দেহ গুণকীর্তন করি।